রামুতে প্রধান বন সংরক্ষক : জীব বৈচিত্র রক্ষা ও বন সংরক্ষণে সমন্বিত পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে

488

p....3

 মো. আমান উল্লাহ, ৬ জানুয়ারি ২০১৬, দৈনিক রাঙামাটি : বন অধিদপ্তরের প্রধান বন সংরক্ষক মো. ইউনুছ বলেছেন, এই অঞ্চলের জীব বৈচিত্র রক্ষা ও বন সংরক্ষণে সমন্বিত পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে সরকার। বন সংরক্ষণের নিজ নিজ অবস্থান ভূমিকা রাখাসহ পর্যটন শিল্পের বিকাশে ঘটাতে বিত্তবান মানুষকে এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি। মঙ্গলবার কক্সবাজারের রামু উপজেলার রাজারকুল বোটানিক্যাল গার্ডেনের অভ্যন্তরে কক্সবাজার দক্ষিণ বনবিভাগের ‘পাহাড়ি প্রাণি ও জীববৈচিত্র পুনরুদ্ধার’ প্রকল্পের আওতায় নতুন ভবন উদ্বোধন কালে প্রধান বনসংরক্ষক এ কথা বলেন।

প্রধান বন সংরক্ষক আরো বলেন, রামু রাজারকুল বোটানিক্যাল গার্ডেন পর্যটকদের জন্য অন্যতম বিনোদন কেন্দ্র। রামুর বোটানিক্যাল গার্ডেনকে ব্যাপক ভাবে ঢেলে সাজানোর কাজ শুরু হয়ে গেছে। আগামী কয়েক বছরের মধ্যে কক্সবাজারের পাশাপাশি বৃহত্তর পর্যটন শহরে রূপান্তরিত হবে রামু। কক্সবাজার দক্ষিণ বনবিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আলী কবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, চট্টগ্রাম অঞ্চলের বন সংরক্ষক আব্দুল লতিফ মিয়া, কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা শাহ-ই আলম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন রাজারকুল রেঞ্জ কর্মকর্তা আমীর হামজা। এছাড়াও এতে বন বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধি ও সামাজিক বনায়নের উপকারভোগী প্রতিনিধিরা বক্তব্য রাখেন।

পোস্ট- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান