লামায় ঘুর্ণিঝড় মোরা’র তান্ডবে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা ও মৎস্য সপ্তাহ পালন

468

॥ লামা প্রতিনিধি ॥

বান্দরবানের লামা উপজেলায় ঘুর্ণিঝড় মোরা’র তান্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ প্রদান করেছে ইউনাইটেড ন্যাশন ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম (ইউএনডিপি)।

বুধবার দুপুরে স্থানীয় টাউন হলে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি ৪৫০ জন ক্ষতিগ্রস্তের মাঝে এ অর্থ বিতরণ উদ্বোধন করেন। এ উপলক্ষে লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার খিনওয়ান নু’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় ইউএনডিপি’র জাতীয় কর্মসূচী ব্যবস্থাপক প্রসেনজিৎ চাকমা, বান্দরবান জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের প্রতিনিধিদ্বয়, আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য কাজল কান্তি দাশ, জেলা পরিষদ সদস্য লক্ষিপদ দাশ, পৌরসভা মেয়র মো. জহিরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ ইসমাইল, সাধারণ সম্পাদক বাথোয়াইচিং মার্মা বিশেষ অতিথি ছিলেন।

এসময় মন্ত্রী বলেন, ইউএনডিপি পার্বত্য জনপদে ব্যপক উন্নয়ন কর্মকান্ড করছে। তিনি আরও বলেন, সরকার ২০২১ সালে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশ ও ২০৪১ সালে উন্নত দেশে পরিণত করতে সফলতার সাথে কাজ করে যাচ্ছে।

এজন্য পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে এই অঞ্চলে শান্তি সম্প্রীতি বজায় রেখে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে গণ-মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে সরকার। এরপর একই মঞ্চে ‘মাছ চাষে গড়বো দেশ, বদলে দেব বাংলাদেশ’ এই শ্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উদ্বোধন উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি বলেন, দেশ ব্যাপী মানুষের ৬০ ভাগ প্রাণিজ আমিষ চাহিদা পূরণে ও গ্রামীণ কর্মসংস্থান সৃষ্টিসহ বৈদেশিক মুদ্রার্জনে সরকার মৎস্যখাতকে গুরুত্ব¡ দিয়েছে। এ সময় তিনি আরও বলেন, মাতামুহুরী ও সাঙ্গু নদীর মিঠা পানির মাছের সাধ ও ঐতিহ্য ছিল।

এসব নদীর মাছের প্রজনন বৃদ্ধি করে সেই ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে বিষ প্রয়োগে মাছ নিঁধন কঠোর হস্তে দমন করতে হবে। অনুষ্ঠানে উপজেলা মৎস্য চাষে বিশেষ অবদান রাখায় তিনজন মৎস্য চাষীকে পুরস্কৃত করা হয়।

উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক প্রদীপ কান্তি দাশের উপস্থাপনায় স্বাগতিক বক্তব্য দেন, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাসেদ পারভেজ। শেষে উপজেলা পরিষদ পুকুরে মাছের পোনা অবমুক্ত করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।