শরীরচর্চা হোক পুলিশ সদস্যদের করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের প্রধান হাতিয়ার

546

॥ মেহেদী ইমাম ॥
অনুশীলন ক্যাম্পে রাঙামাটির এসপি আলমগীর কবির, প্রাণঘাতী মহামারী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে যারা ফ্রন্টলাইনে কাজ করে যাচ্ছেন তাঁদের মধ্যে অন্যতম ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে বাংলাদেশ পুলিশ। বাংলাদেশে এ যাবৎকালে করোনা আক্রান্ত পুলিশের সংখা ৫ হাজারেরও অধিক। রাঙামাটি পার্বত্য জেলার পুলিশ সুপার মোঃ আলমগীর কবির পিপিএম-সেবা’র নির্দেশে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নেয়া হয়েছে শরীরচর্চা অনুশীলনের মতো উদ্যোগ।

মঙ্গলবার (৯ জুন) সকাল ৯টায় নিউ পুলিশ লাইন, সুখিনীলগঞ্জে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধকল্পে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি ও নিজেদের সুরক্ষার জন্য শরীরচর্চা অনুশীলন করেছে রাঙামাটি জেলা পুলিশ সদস্যরা। এসময় প্রায় ১৫০ জন পুলিশ সদস্য শরীরচর্চা অনুশীলনে অংশগ্রহণ করেন।

শরীরচর্চা অনুশীলন পরিদর্শন করেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) সুফি উল্লাহ। এসময় তিনি পুলিশ সদস্যদের করোনা প্রতিরোধে শরীরচর্চার বিভিন্ন দিক নির্দেশনা প্রদান করেন।

“রোগ প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধ উত্তম” এই লক্ষ্যে প্রত্যেক পুলিশ সদস্যকে চলমান দায়িত্বের পাশাপাশি শরীরচর্চা করার জন্য নির্দেশ প্রদান করেন পুলিশ সুপার মোঃ আলমগীর কবীর, পিপিএম-সেবা। তিনি বলেন, করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় শরীরচর্চা হোক আনন্দের, শরীরচর্চা হোক করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের বাহক।

পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে করোনা ভাইরাস সনাক্তের পূর্ব থেকে এই ভাইরাস সম্পর্কে জনগনকে সচেতন করতে লিফলেট বিতরণ, চেকপোষ্ট ডিউটি, বাজার ডিউটি, আইসোলেশন ও কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতকরণ প্রভৃতি কাজ সুষ্ঠ ও  সুচারুরূপে সম্পাদন করছে রাঙামাটি জেলার পুলিশ সদস্যরা।

উল্লেখ্য, সারাদেশের ন্যায় রাঙামাটি জেলা পুলিশের এপর্যন্ত ০৭ জন পুলিশ সদস্য করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে এবং যার মধ্যে ০২ জন সুস্থ হয়েছে। এরপরও প্রতিনিয়ত পুলিশ সদস্যরা নিজেদের মনোবল দৃঢ় রেখে কাজ করে যাচ্ছে। তাই শরীরচর্চার মাধ্যমে পুলিশ সদস্যদের সুস্থ দেহ ও প্রশান্ত মন বজায় রাখতে রাঙামাটি জেলা পুলিশের এই বিশেষ উদ্যোগ।