শিল্পকলার নন্দনমঞ্চে দর্শকদের মুগ্ধ করলেন রাঙামাটির শিল্পীরা

302

ছবি- শামীমুল আহসন
ছবি- শামীমুল আহসন

 
ঢাকা ব্যুরো অফিস, ৯ জানুয়ারি ২০১৬, দৈনিক রাঙামাটি : বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে ৬৪ জেলার শিল্পকলা একাডেমির শিল্পীদের অংশগ্রহণে প্রথম জানুয়ারি থেকে আঠারো জানুয়ারি পর্যন্ত টানা ১৮ দিনব্যাপী চলছে বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক উৎসব ২০১৬। ঢাকার সেগুনবাগিচার বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি নন্দনমঞ্চে চলছে এ উৎসব।

আজ ৯ই জানুয়ারির আয়োজনে অন্যান্ন দলের সাথে অংশগ্রহণ করে রাঙামাটি জেলা শিল্পকলা একাডেমির শিল্পীরা। তাদের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা দর্শকদের মুগ্ধ করেছে। মূহুর্মূহ করতালি আর শোড়গোল তারই প্রমান।

শুরুতেই ‘মুরোত হিয়ার সং জাগাত’ ও ‘এক সুন্দর পৃথিবী গড়তে চাই’ শীরনামের দলীয় সংগীতের মাধ্যমে তাদের পরিবেশনা শুরু হয়। এর পর শিশু ও বড়দের জুম নৃত্য, মারমা ছাতা নৃত্য, ত্রিপুরা বোতল নৃত্য, ঐতিহ্যবাহী সম্প্রীতি নৃত্য দর্শকদের ভীষণ ভাবে মুগ্ধ করে। এছাড়া, মিলন ধরের একক কন্ঠে নজরুল গীতি ‘আলগা করো গো খোঁপার বধন……’ ও অপর্ণা দেব রায়ের একক কন্ঠে ‘দ:খ আমার বাসর রাতের পালংক……’ বেশ ভালই লেগেছ। তবে এত বড় মঞ্চে গান করার পূর্ব অভিজ্ঞতা বা যথাযথ প্রশিক্ষনের অভাব রয়েছে বলে প্রতিয়মান হয়েছে।

পাঁচ’টি দলে বিভক্ত পাহড়ি নৃত্য শিল্পীরা হলেন- জিগিসা, ত্রিবেনী, দো য়েবী, হেমা, ¯্রয়ে শী,জনেশ, সুপ্রিয়া, চন্দনা, মিঠুন, রোমেল ও নিতিশ চাকমা। সংগীত পরিবেশন করেন, শিশু শিল্পী প্রতিভা চাকমা, আদর্শি চাকমা, এবং বড়দের মধ্যে গয়না চাকমা, জুই দে, শৈলেন চাকমা, তিতাশ চাকমা ও বিভা চাকমা।

অংশগ্রহণকারী শিল্পীদের দল নেতা ছিলেন রাঙামাটি জেলা শিল্পকলা একাডেমির কালচারাল অফিসার অনু স্মৃতীয়া চাকমা। দলের তত্বাবোধায়নে ছিলেন রাঙামাটি জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক- সর্বজন শ্রোদ্ধেয় মুজিবুল হক বুলবুল।
অনুষ্ঠান শেষে আয়োজকদের পক্ষ থেকে বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব সারোয়ারা মাহমুদ আয়োজনে অংশগ্রহণের জন্য রাঙামাটি জেলা শিল্পকলা একাডেমিকে শুভেচ্ছা ক্রেস্ট প্রদান করেন। সকলের পক্ষ থেকে রাঙামাটি জেলা শিল্পকলা একাডেমির কালচারাল অফিসার অনু স্মৃতিয়া চাকমা ক্রেস্টটি গ্রহণ করেন।

পোস্ট- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান

ছবি- শামীমুল আহসন