সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে একটিমহল অপতৎপরতা চালাচ্ছে: দীপংকর

613

p-7
॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

সাবেক পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য দীপংকর তালুকদার বলেছেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে কিছু স্বার্থান্বেষী মহল দেশে অপতৎপরতা চালাচ্ছে। তার দৃষ্টান্ত রামু ও ব্রাক্ষ্রনবাড়িয়ার নাসিরনগরে হামলা।

তিনি বলেন, দেশের এ উগ্রবাদী গোষ্ঠি এদেশে শান্তি বিনষ্ট করছে। তারা ধর্মকে পুঁিজ করে লুটপাট ও তাদের স্বার্থ হাসিল করছে এদের চিহ্নিত করে সমাজে এদের মুখোশ উন্মোচন করতে হবে বলে আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় এ নেতা জানান।

তিনি আরও বলেন, বাঙালী জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী হয়ে সেদিন দেশের আপামর জনগণ ৭১’র স্বাধীনতা যুদ্ধে এই দেশের স্বাধীনতার জন্য ঝাঁপিয়ে পড়েছিলো। তেমনি ভাবে দেশের এসব উগ্রবাদীদের বিরুদ্ধে দেশের শান্তি-সম্প্রতি বজায় রাখার জন্য আবারো এক সাথে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। সোমবার বিকেলে জেলার কাপ্তাই উপজেলার ঐতিহাসিক চিং¤্রং বৌদ্ধ বিহারে কঠিন চীবর দানোৎসব-২০১৬ উপলক্ষে আয়োজিত ধর্মসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

চিং¤্রং বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ মহা সংঘনায়ক রাজ নিকায়মার্গ ভদন্ত পামোক্ষা মহাথেরর সভাপতিত্বে ধর্মীয় সভায় রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা, পরিষদের সদস্য থোয়াইচিং অং মারমা, কঠিন চীবর দান উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক মংপ্রু মারমা-সহ স্থানীয় সামাজিক ও রাজনৈতিক নেতা এবং সরকারের পদস্থ কর্মকর্তাবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

ধর্মীয় সভায় দীপংকর তালুকদার বলেন, দেশের প্রতিটি জনগন যে যার নার্য্য অধিকার পায় সে লক্ষে আওয়ামীগ সরকার কাজ করছে। এই সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূখী পদক্ষেপের কারণে যার যার ধর্ম সকলে সঠিকভাবে পালন করতে পারছে। কিন্তু সরকারের এই উন্নয়ন পদক্ষেপে বাঁধা সৃষ্টি করতে বিএনপি জামাত প্রতিনিয়তই সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা হাঙ্গামা ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম করছে। তিনি বলেন, হিংসা দিয়ে হিংসা প্রতিষ্ঠা করা যায় ভালোবাসা নয়। জনগনের ভালোবাসা কিভাবে পেতে হয় তা একমাত্র আওয়ামীলীগ সরকারই জানে।

অনুষ্ঠানে উপদেশ মূলক বক্তব্যে প্রদান করেন চিং¤্রং বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত পামোক্ষা মহাথের।

আয়োজিত ধর্মীয় অনুষ্ঠানে প্রধান ধর্ম দেশক হিসেবে পুণ্যার্থীদের উদ্দেশ্যে ধর্ম দেশনা দেন কাপ্তাই রাইখালী ইউনিয়নের বড়খোলা পাড়া বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ সুমনা মহাথের, চট্টগ্রাম ফরা রং খ্রেদ ক্যং বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ঊঃ ওয়ান্নাসিরি ভিক্ষু-সহ অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ বৌদ্ধ ভিক্ষুগণ।

এ ছাড়াও চিং¤্রং বৌদ্ধবিহারে সকাল থেকে ভিক্ষুসংঘের পিন্ডদান, বুদ্ধপূজা, কল্পতরু শোভাযাত্রা, পঞ্চশীল প্রার্থনা ও গ্রহণ, বৃদ্ধমূর্তি দান, চীবর উৎসর্গ ও দান, সংঘদান, অষ্ট পরিস্কার দান, ধর্মসভা, ভিক্ষুসংঘ কর্তৃক ধর্মীয় দেশনা প্রদান-সহ নানান অনুষ্ঠানসূচি পালিত হয়। সন্ধ্যায় প্রদীপ প্রজ্জ্বলন ও ফানুস ওড়ানোর মধ্য দিয়ে এ মহান ধর্মীয় অনুষ্ঠান শেষ হয়। বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় এ উৎসবে জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে যোগ দিয়েছিলেন অগণিত পুণ্যার্থী।