সাজেকে জেএসএস-ইউপিডিএফ ঘন্টাব্যাপী বন্দুকযুদ্ধ ॥ শিশু গুলিবিদ্ধ

71

॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

বাঘাইছড়ির সাজেক ইউনিয়নের গন্ডারামছড়া এলাকায় আঞ্চলিক সংগঠন ইউপিডিএফ প্রসিত ও জেএসএস সন্তু লারমা গ্রুপের সশস্ত্র বাহিনীর মধ্যে ঘন্টাব্যাপী বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় একটি শিশুও গুলিবিদ্ধ হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। রোববার (১১ ফেব্রুয়ারী) বিকেলে এই বন্দুক যুদ্ধ হয় বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। সাজেক ইউনিয়নের সিয়ালদাহ লুই এলাকার মেম্বার জোপ্পুইথাং ত্রিপুরা গুলাগুলির বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন দুপুর ৩ টা থেকে থেমে থেমে আনুমানিক ২৫০-৩০০ রাউন্ড গুলাগুলির শব্দ শুনাযায়।

এসময় গুলির শব্দে আতঙ্কিত হয়ে দৌড়ে ঘরে যাওয়ার পথে রোমিও ত্রিপুরা গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে বিজিবির সিয়ালদাহ লুই বিওপিতে নিয়ে আসলে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য সাজেক রুইলুই অস্থায়ী হাসপাতালে পাঠানো হয়। গুলিবৃদ্ধ রোমিও ত্রিপুরা গন্ডারামছড়া এলাকার ফবেন ত্রিপুরার ছেলে।

সাজেক থানার সার্কেল অফিসার ও রাঙামাটির সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আবদুল আওয়াল গুলাগুলির বিষয়টি শিকার করে বলেন আহত শিশুটির চিকিৎসার জন্য সবধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। এদিকে গত ৪ ফেব্রুয়ারী সাজেকের মাচালং ব্রীজ পাড়ায় ইউপিডিএফ এর দুই সদস্য দীপায়ন চাকমা ও আশিষ চাকমাকে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা তবে এই হত্যাকান্ডের জন্য জেএসএস সন্তু লারমা দলকে দায়ী করে ইউপিডিএফ।
এদিকে মহামান্য রাষ্ট্রপতি মো: সাহাবউদ্দিন তিন দিনের অবকাশ যাপনে সাজেক অবস্থান করছেন। ফলে সাজেকসহ আশপাশের এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করার পাশাপাশি নজরধারি বাড়ানো হয়েছে। এর মধ্যেই পাহাড়ের আঞ্চলিক সংগঠন ইউপিডিএফ ও জেএসএস এর মধ্যে ভয়াবহ এই বন্দুক যুদ্ধের ঘটনায় স্থানীয়দের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।