স্কাউটিং আন্দোলনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা দেশ প্রেম শিখে থকে

372

ppppp

রাজস্থলী প্রতিনিধি- ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৬, দৈনিক রাঙামাটি : স্কাউটিং আন্দোলনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা উন্নত নৈতিক চরিত্রের অধিকারী হিসেবে নিজেদের গড়ে তোলার সুযোগ পায় মন্তব্য করে রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মো. সামসুল আরেফিন বলেছেন, স্কাউটিং আন্দোলনে সম্পৃক্ত শিক্ষার্থীরা কখনো বিপদগামী হতে পারে না এবং মূল্যবোধের অবক্ষয়ের মুখে পড়ে না। শিক্ষার্থীদের যত বেশি এ স্কাউটিং আন্দোলনে সম্পৃক্ত করা যাবে, জাতি তত বেশি উপকৃত হবে। তাই প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে এ স্কাউটিং আন্দোলন ছড়িয়ে দিতে হবে। শৃঙ্খলা বোধ এবং দায়িত্ববোধের পাশাপাশি স্কাউটিং আন্দোলনের মাধ্যমে দেশ প্রেমিক সৃষ্টি হয়। তিনি আরো বলেন, স্কাউটিং আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা ১৮৫৭ সালে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯০৭ সালে স্কাউটিং আন্দোলনের সূচনা করেছিল। আজ বিশ্বব্যাপী সেই আন্দোলনের সমৃদ্ধ হয়েছে। গত বুধবার রাজস্থলী উপজেলা হল রুমে দুই দিনব্যাপী ৩য় উপজেলা স্কাউট সমাবেশ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুজন চৌধুরী। এসময় বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উথিনসিন মারমা, ভাইস চেয়ারম্যান অংনুচিং মারমা, রাজস্থলী সাব জোন কমান্ডার সেলিম রেজা, থানা অফিসার উপ পরিদর্শক কাজী আলাউদ্দিন, ঘিলাছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান দীপময় তালুকদার, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সঞ্জয় দেবনাথসহ বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বয়জ ও গার্জ স্কাউট এবং স্কাউট লিডারসহ বিভিন্ন এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

পোস্ট করেনন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান