স্বাস্থ্যবিধি থোড়াই কেয়ার করছে রাঙামাটির মানুষ ॥ ভীড় ঈদের মতো

84

প্রশাসন তৎপর, জনগণ বেপরোয়া

॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥
করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ দিন দিন বৃদ্ধি পেলেও কোনো সচেতনতা নেই রাঙামাটির সাধারণ মানুষের মাঝে। প্রশাসন নানাভাবে চেষ্টা চালিয়ে গেলেও ভ্রাম্যমাণ আদালত পার হয়ে গেলেই আবার তৎপর হচ্ছে মানুষ। সামাজিক দূরত্ব, মাস্ক ব্যবহার বা সরকারিা নিদের্শনা; কোনো কিছুর দিকেই ভ্রুক্ষেপ নেই তাদের; ভীড় যেন ঈদ বাজারের মতো। বেশিরভাগ মানুষ চলাফেরা করছে বেপরোভাবে।

দূরপাল্লার যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকলেও শহরে সিএনজি অটোরিক্সা ও মোটরসাইকেলসহ সব ধরনের যানবাহন চলাচল করছে। শহরের বিভিন্ন হাট বাজারে নিত্যদিনের মতোই স্বাভাবিক ভাবে উৎসব মুখর পরিবেশে বেচাকেনা করছে। নেই কোন স্বাস্থ্যবিধি নিষেধ।

শনিবার (১০ এপ্রিল) সকালে হাট বাজার থাকায় রাঙামাটির ব্যস্ততম এলাকা বনরূপা বাজারে কাঁচা বাজারসহ প্রতিটি দোকানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে গাদাগাদি করে সবাই বাজারে ঢুকছেন আর বাজার করে বেড় হচ্ছেন। হাটবাজারে অধিকাংশ মানুষ এখনো মাস্ক ব্যবহার করছে না। স্বাভাবিক গতিতে চলছে রাঙ্গামাটির মানুষের জীবনযাত্রা।

অনেকেই বাজারে গেছেন বৈসাবী পালনের উপলক্ষে আবার কেউ কেউ বাজারে গেছেন ১ সপ্তাহ পুরোপুরি লকডাউনের কথা শুনে। বাজারে গিয়ে যে যার মতো করে হুড়োহুড়ি করে একে অপরের সাথে গাদাগাদি করে বাজার করছেন। সরকারের কোন নিদের্শনায় মানছেন না কেউ।

এদিকে জেলায় করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে কল্পের সরকার ঘোষিত লকডাউন বাস্তবায়নের রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে অব্যাহতভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে কর্মকর্তারা। প্রতিদিন জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শহরে ভ্রাম্যমান আদালত, মাস্ক পড়ার নিশ্চিতকরন, মাস্ক বিতরন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, স্যানিটাইজার ব্যবহার, হাত ধোয়া, করোনা ভেকসিন ডোজ গ্রহনসহ নানান ভাবে প্রচার প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু শহরের সাধারণ মানুষদের স্বাস্থ্যবিধি ও নির্দেশনা মানছেন না কোন ভাবেই।