১০ ডিসেম্বর সকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় অভিমুখে তিন পার্বত্য গণতান্ত্রিক সংগঠনের বিক্ষোভ মিছিল

530

DSC_0240 ddddddd

ঢাকা ব্যুরো অফিস, ৯ ডিসেম্বর ২০১৫, দৈনিক রাঙামাটি (সংবাদ বিজ্ঞপ্তি) : ১০ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে খাগড়াছড়িতে গ্রেপ্তারকৃত নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবি ও পার্বত্য চট্টগ্রামে সংবিধানস্বীকৃত সভাসমাবেশের অধিকার সুরক্ষার দাবিতে পার্বত্য চট্টগ্রামের তিন গণতান্ত্রিক সংগঠন- ‘পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ, হিল উইমেন্স ফেডারেশন ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম’ আগামীকাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় অভিমুখে এক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের আয়োজন করবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশ থেকে ১০ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় উক্ত কর্মসূচি শুরু করা হবে।

উল্লেখ্য, গত জানুয়ারি মাসে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ে অসাংবিধানিক ও অন্যায় ভাবে ১১ দফা নির্দেশনা জারি করে। উক্ত নির্দেশনা জারির পর থেকে পার্বত্য চট্টগ্রাামের অধিকার আদায়ের জন্য আন্দোলনরত ইউপিডিএফ ও তার অঙ্গসংগঠনসমূহের কর্মীদের গ্রেপ্তার হয়রানী চালানো হচ্ছে। এমনকি সভা সমাবেশ করতেও বাধা প্রদান করা হচ্ছে।

গত ২৯ নভেম্বর ফিলিস্তিন সংহতি দিবস উপলক্ষে খাগড়াছড়িতে ৮ সংগঠন এক মিছিলের আয়োজন করলে সেনা ও পুলিশবাহিনী নির্বিচারে নারী-পুরুষসহ মিছিলে আগত সবার উপর হামলা ও লাঠিপেটা করে। এতে আহত হয় প্রায় ১৪ জন। মিছিল থেকে আটক করা হয় হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভানেত্রী নিরূপা চাকমা ও সংগঠনের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার দপ্তর সম্পাদক দ্বিতীয়া চাকমাকে। উক্ত হামলা ও আটকের প্রতিবাদে ০১ ডিসেম্বর অবরোধের ডাক দেয়া হলে অবরোধের আগে-পরে আটক করা হয় তিন সংগঠনের আরো প্রায় ৭ জন কর্মীকে।

গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে সেনা পুলিশ বাহিনী দিয়ে দমন পীড়ন বন্ধের দাবি, গণবিরোধী ১১ দফা নির্দেশনা প্রত্যাহার, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভানেত্রী নিরূপা চাকমা ও সদস্য দ্বিতীয়া চাকমার মুক্তির দাবিসহ সভা সমাবেশের অধিকার সুরক্ষার দাবি জানিয়ে আয়োজিত স্বরাষ্্রমন্ত্রণালয় অভিমুখে উক্ত মিছিল ও সমাবেশে দেশের সচেতন জনগণসহ সবাইকে সংহতি প্রকাশের জন্য তিন সংগঠন উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছে।

বার্তাপ্রেরক- বিপুল চাকমা
সাধারণ সম্পাদক- পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ, কেন্দ্রীয় কমিটি

পোস্ট করেন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান