১৫ দিন পর মুক্তি পেলো রাজবাড়ি থেকে অপহৃত তিন শ্রমিক :

399

index

স্টাফ রিপোর্টার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৬, দৈনিক রাঙামাটি : ১৫ দিন পাহাড়ের গহীণ অরণ্যে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের হাতে বন্দি থাকার পর অবশেষে সোমবার দুপুরে মুক্তি পেয়েছে রাঙামাটির রাজবাড়ি থেকে অপহৃত তিন নির্মাণ শ্রমিক। চলতি মাসের আট তারিখ রাজবাড়িস্থ বিহারপুর এলাকায় নির্মাণাধীন ব্রীজের কাজে রত শ্রমিক আব্বাস, ছোট মানিক ও বড় মানিক নামে তিনজনকে অস্ত্রের মুখে অপহরণ করে নিয়ে যায় একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী। দীর্ঘ ১৫ দিন পরে তাদেরকে মুক্তি দিয়েছে অপহরণকারিরা।

রাঙামাটি কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ রশিদ অপহৃতরা মুক্তি পেয়েছে বলে এই প্রতিবেদককে নিশ্চিত করেছেন। তিনি দাবি করেন, প্রশাসনের অব্যাহত চাপের মুখে অপহরণকারিরা কোনঠাসা হয়ে অপহৃত তিন শ্রমিককে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়েছে। সোমবার সকালে তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হয় বলে জানা গেছে।

অপহৃতদের ব্যাপারে জানতে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মালিকের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি কল রিসিভ করেননি। তবে অপহৃতদের স্বজনদের সাথে যোগাযোগ করলে, অপহৃত মানিক ও আব্বাস এর নিকটাত্মীয়রা জানিয়েছেন, তাদের চোখ বেধে অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে যাওয়ার পর ইঞ্জিন বোটে করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। পরে একটি উচুঁ পাহাড়ের উপর তুলে সেখানে একটি টং ঘরে তাদেরকে চোখ বেঁেধ রাখতো সারাদিন। খাওয়ার সময় চোখ সামান্য সময়ের জন্য খুলে দিলেও খাওয়া শেষে আবারো চোখ বেঁেধ ফেলা হতো। পরে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মালিকের সাথে সমঝোতার প্রক্রিয়া শেষে দীর্ঘ ১৫ দিন পরে রোববার সকালে রাঙামাটি শহরের রিজার্ভ বাজারের নিকটস্থ একটি পাহাড়ে অপহৃতদের রেখে চলে যায় অপহরণকারি চক্রটি।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, অপহৃতদের নিয়ে নানিয়ারচরের দিকে নিয়ে যায় সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। নানিয়ারচরস্থ মুন্সি আব্দুর রউফ সমাধিস্থলের আশে পাশের কোনো একটি উচুঁ পাহাড়ের চূড়াঁয় অপহৃত তিন শ্রমিককে একটি ঘরে রাকা হয় তাদের। ঘরের চারদিকে মোট ছয়জন সন্ত্রাসী সশস্ত্র অবস্থায় পাহাড়া দিতো বলেও জািনয়েছে সূত্রটি।

পোস্ট করেনন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান