৫নং ওয়ার্ড থেকে কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করবেন যারা

108

॥ ইকবাল হোসেন ॥
আসন্ন রাঙামাটি পৌরসভা নির্বাচনে ৫নং ওযার্ডে কাউন্সিলর পদে যারা নির্বাচন করবেন তারা ইতিমধ্যে জনসমর্থন গড়ে তুলতে প্রচার প্রচারণা শুরু করে দিয়েছেন। তারা হলেন বর্তমান কাউন্সিলর বাচিং মারমা, অজিত দাশ, মো. নুরুল আবসার, গোপাল তঞ্চঙ্গ্যাঁ, উচিং ছা রাখাইর কায়েস, তৌহিদুল আলম মামুন।

বাচিং মারমাঃ
৫নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর বাচিং মারমার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমাকে যদি ৫নং ওয়ার্ডের জনসাধারণ পূর্বের ন্যায় আবারো নির্বাচিত করে তাহলে প্রস্তাবিত যে সকল রাস্তার কাজ বাকি আছে তা সম্পন্ন করব। পৌরসভার শেষ সীমানায় যে এলাকাগুলো আছে তারা অবহেলিত। তাদের এখানে সড়ক বাতি নাই, আমি সেসকল এলাকায় সড়ক বাতি স্থাপন করব।

রাস্তা নির্মাণের ক্ষেত্রে পৌরসভার যে বরাদ্দ আছে তা দিয়ে এলাকাবাসীকে সাথে নিয়ে শতভাগ বাস্তবায়ন করবো। পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে বর্তমানে যেভাবে কাজ চলছে তা অব্যাহত থাকবে এবং আমি ৫নং ওয়ার্ডকে পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন ওয়ার্ড হিসেবে গড়ে তুলবো। এরপাশাপাশি আমার ওয়ার্ড থেকে ৫শতাধিক বৃদ্ধ, বিধবা, প্রতিবন্ধীদের নাম ভাতার জন্য প্রক্রীয়াধীন আছে। আমি পর্যায়ক্রমে তাদের ভাতা নিশ্চিত করব। তিনি আরো বলেন, আমি গত ৫বছর যেভাবে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রেখে কাজ করেছি তা আগামীতেও অব্যাহত রাখব।

বাচিং মারমা আসামবস্তি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য, ঝগড়াবিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য, বিলাইছড়ি পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য, বৈল্যা শাক্যমুনি বৌদ্ধ বিহার পরিচালনা কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এরপাশাপাশি বিভিন্ন সামজিক ও স্বেচ্ছাসেবী কার্যক্রমের সাথে তিনি জড়িত আছেন।

অজিত দাশঃ
এবিষয়ে অজিত দাশের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমাকে যদি ৫নং ওয়ার্ডের জনসাধারণ আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করে তাহলে আমার প্রথম কাজ হবে পৌরসভার মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টির ব্যবস্থা করবো। নারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করবো, ৫নং ওয়ার্ডে যাতে আমার মা-বোনেরা নিশ্চিন্তে চলাচল করতে পারে আমি সে ব্যবস্থা করব। জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে নিয়ে আমি সুন্দর একটি ৫নং ওয়ার্ড গড়ে তুলব। রাস্তা-ঘাট, পৌরসভার লাইটিং ও পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতাসহ ওয়ার্ডের জনসাধারণ পৌরসভার পক্ষ থেকে যেসকল সুযোগ-সুবিদা পাওয়ার কথা তা শতভাগ নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যেই আমার এ নির্বাচনে অংশ নেওয়া। তাই ৫নং ওয়ার্ডের জনসাধারণ যদি আমাকে তাদের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে ভেবে আমাকে নির্বাচিত করে তাহলে আমি এই সুবিধাগুলো নিশ্চিত করতে পারব।

তিনি আরো বলেন, আমার অনেক দিনের ইচ্ছা আমি যদি নির্বাচিত হই তাহলে বৃদ্ধদের জন্য পৌরসভার মাধ্যমে একটি পাঠাগার প্রতিষ্ঠা করবো। আর যুবকদের জন্য আমি খেলাধুলার ব্যবস্থা করবো যাতে তারা অন্য দিকে ধাবিত না হয়। আরেকটি বিষয় আমার ওয়ার্ডে যাতে শিক্ষার হার বৃদ্ধি পায় সেবিষয়ে আমার বিশেশ নজর থাকবে এবং জাতি ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে নিয়ে এ বিষয়টিতে কাজ করব।

অজিত দাশ- শ্রী শ্রী শীতলা মাতৃমন্দির আসামবস্তি রাঙাামটি পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক, নবজাগরণ স্টার্টিং সমিতি রাঙামাটি পার্বত্র জেলার সভাপতি, আসামবস্তি সরকারি প্রাতমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য, রাঙামাটি জেলাপ পূজা উদযাপন পরিষদের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক, মা মগদেশ্বরী মন্দির আসামবস্তি পরিচালনা কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী কাজের সাথে জড়িত আছেন।

মো. নুরুল আবসারঃ
এবিষয়ে কাউন্সিলর প্রার্থী মো. নুরুল আবসার’র সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বিশেষ করে ৫নং ওয়ার্ডের বাঙ্গালী সংখ্যাগরিষ্ঠ এলাকার মানুষজন সরকারি সকল সাহায্য সহযোগিতা হতে বঞ্চিত হচ্ছে। তাই আমাকে যতি কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত করা হয় তাহলে আমি জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে সাথে নিয়ে কাজ করব। বৃদ্ধ, বিধবা ও শিশু ভাতা আমি সকলে সাথে নিয়ে সমবন্টন বিষয়ে কাজ করব। ৫নং ওয়ার্ডের কোন অলি-গলি অন্ধকার থাকবেনা শতভাগ লাইটিং এর ব্যবস্তা করব। পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে আমি বিশেষ গুরুত্ব সহকারে কাজ করব। আর আমার ওয়ার্ডে যেসকল রাস্তাঘাট অসম্পূর্ণ আছে তা আমি সম্পূর্ণ করবো।

করোনা পরিস্থিতিতে তিনি নিজ উদ্যোগে ২৭০টি পরিবারকে ত্রান সহায়তা করেছেন। তরুণ সামাজিক সংগঠন আলোর ফুল’র সহ-সভাপতি, রাঙামাটি চিড়াই কাঠ ব্যাবসায়ী সমিতির সদস্যসহ বিভিন্ন সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী কার্যক্রমের সাথে জড়িত আছেন।

গোপাল তঞ্চঙ্গ্যাঁঃ
এবিষয়ে গোপাল তঞ্চঙ্গ্যার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, মানুষের সুখে-দুঃখে সবসময় আমি পাশে থেকে তাদেরকে সাহায্য সহযোগিতা করে যাচ্ছি। আমাকে যদি ৫নং ওয়ার্ডের জনসাধারণ নির্বাচিত করে তাহলে রাস্তাঘাট নিয়ে যেখানে সমস্যা হবে সেখানে নিজে উপস্থিত হয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। দুঃস্থ যে পরিবার গুলো আছে তাদের জন্য যথাযথ স্যানিটেশনের ব্যবস্থা করব। সমাজকে মাদকমুক্ত করতে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। আমার ওয়ার্ডকে পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার মাধ্যমে পর্যটক বান্ধব ওয়ার্ড হিসেবে গড়ে তুলব। বৃদ্ধ, বিধবা ও শিশুভাতা আমি সঠিকভাবে বন্টন করব।

গোপাল তঞ্চঙ্গ্যাঁ ৯বছর ধরে ত্রিরতœাঙ্কুর বৌদ্ধ বিহারের সাভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন, ঝগড়াবিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অভিভাবক কবমিটির সদস্য সাবেক সদস্য সচিব, ফু’কালাং সাংস্কৃতিক একাডেমীর সদস্য। এছাড়াও তিনি এলাকার যুবাদের ক্রীড়া ক্ষেত্রে অগ্রসর করতে অবদান রেখে চলেছেন। তিনি সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী কর্মকান্ডে জড়িত আছেন।

উচিং ছা রাখাইর কায়েসঃ
এবিষয়ে উচিং ছা রাখাইর কায়েস’র সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এলাকার মুরব্বিদের সমর্থন নিয়ে আমি কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচন করব। আমাকে নির্বাচিত করা হলে- ইয়াং কাউন্সিলর হিসেবে আমি সাংবাদিক হিসেবে যেভাবে জনসেবা করে যাচ্ছি তা অব্যাহত রাখব। আমি যুবসমাজকে  সাথে নিয়ে কাজ করব- ৫নং ওয়ার্ডকে মাদকমুক্ত করব। সকলকে সাথে নিয়ে রাস্তা-ঘাট, পৌরসভার লাইটিং ও পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন ওয়ার্ড গড়ে তুলব। পর্যটক বান্ধব একটি ওয়ার্ড হিসেবে গড়ে তুলব। আর আমি সাংবাদিক হিসেবে বিভিন্ন জায়গায় যাওয়ার সুযোগ হয় তাই এই সুযোগ গুলোকে কাজে লাগিয়ে আমি ৫নং ওয়ার্ডের উন্নয়ন করব।

তিনি ৭১টিভি’র রাঙামাটি জেলা প্রতিনিধি, হিলবিডি টুয়েন্টফোর ডট কম এর ব্যবস্থাপনা সম্পাদক, রাঙামাটি জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি, জুম ইসথেটিকস কাউন্সিল (জাক) এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক বর্তমান সদস্য। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন সামাজিক  ও স্বেচ্ছাসেবী কার্যক্রমের সাথে জড়িত আছেন।

তৌহিদুল আলম মামুনঃ
এবিষয়ে তৌহিদুল আলম মামুন এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তনি বলেন, আমি দীর্ঘদিন যাবত জনসেবা করে আসছি। আমাকে ৫নং ওয়ার্ডের জনসাধারণ কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত করলে বিগত দিনে আমার ওয়ার্ডের রাস্তাঘাটের যে উন্নয়ন হয়নি আমি তা বাস্তবায়ন করব। লাইটিং এবং পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার কোন কার্যক্রম নাই সরকারি সাহায্য সহযোগিতা সঠিকভাবে বন্টন হয়নি। আমি নির্বাচিত হলে সকল বিষয়ে গুরুত্বসহকারে কাজ করে বাস্তবাযন নিশ্চিত করব।

তিনি রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচিত সদস্য, রাঙামাটি চিরাই কাঠ ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিঃ এর সাবেক প্রচার সম্পাদক, প্রতিভাস ক্লাবের ত্রীড়া সম্পাদক, ফিউচার ক্লাবের সভাপতিসহ বিভিন্ন সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত আছেন।