৯ অক্টোবর থেকে জয়নুল গ্যালারীতে শামীমুল আহসানের একক আলোকচিত্র প্রদর্শনী ‘নৈসর্গিক লীলাভূমি রাঙামাটি’

262

photo-rangamati

স্টাফ রিপোর্টার- ৫ অক্টোবর ২০১৬, দৈনিক রাঙামাটি: রাঙামাটি হোক বিশ্ব পর্যটনদের লীলাভূমি- এই স্লোগান নিয়ে পিছিয়ে পড়া পার্বত্য চট্টগ্রাম রাঙামাটির পর্যটন শিল্প উন্নয়নের লক্ষ্যে দৈনিক রাঙামাটি পত্রিকার আয়োজনে জাতীয় পর্যায়ে নিয়মিত অনুষ্ঠান আয়োজন করছে। এরই ধারাবাহিদতায় আগামী ৯ অক্টোবর থেকে ১৫ অক্টোবর ২০১৬, পর্যন্ত বিশ্ব পর্যটন দিবস উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের জয়নুল গ্যালারিতে সপ্তাহব্যাপি আয়োজন করা হবে ‘নৈসর্গিক লীলাভূমি রাঙামাটি’ শীর্ষক- শামীমুল আহসানের তোলা ছবির একক আলোকচিত্র প্রদর্শনী।

৯ অক্টোবর রবিবার বিকাল ৪টায় প্রদর্শনীর উদ্বোধন করা হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য বিষয়ক উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী এতে প্রধান অতিথি থকবেন। প্রদর্শনীর উদ্বোধন করবেন ২১শে পদকপ্রাপ্ত, দেশবরেণ্য কথা সাহিত্যিক, বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চেয়ারম্যান সেলিনা হোসেন। অনুষ্ঠানের প্রধান আলোচক থাকবেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সাবেক প্রতিমন্ত্রী দীপঙ্কর তালুকদার। বিশেষ অতিথি থাকবেন জাতীয় সংসদের ঢাকা-১৭ আসনের এমপি, বিএনএফ প্রেসিডেন্ট আবুল কালাম আজাদ। অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের মহাসচিব- ওমর ফারুক। ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি- শাবান মাহমুদ। ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান- হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ। ফটোগ্রাফিক ইনিস্টিটিউট ‘প্রিজ্ম’র পরিচালক আলোকচিত্রণ শিক্ষক ও লেখক রফিকুল ইসলাম। প্রতিদিন দুপুর ১২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রদর্শনী দর্শকদের জন্য উম্মুক্ত থাকবে।

শামীমুল আহসান দৈনিক রাঙামাটি পত্রিকার ঢাকা ব্যুরো অফিসের স্টাফ রিপোর্টার। একই সাথে তিনি একজন পেশাদার আলোকচিত্রশিল্পী। ১৯৮৮ সালে তিনি সাংবাদিকতায় আসেন। পরে সাংবাদিকতার প্রয়োজনে ১৯৯৮ সালে বিপিআই থেকে আলোকচিত্রণ শিল্পের উপর প্রশিক্ষন প্রাপ্ত হন। ২০০০ সালে আলোকচিত্রণ শিক্ষক রফিকুল ইসলাম পরিচালিত ‘প্রিজ্ম’ ইনিস্টিটিউট থেকে দুই বছরের ডিপ্লোমা কোর্স সম্পন্ন করেন।

২০০৩ সালে পার্বত্য জেলাসদর রাঙামাটি গিয়ে সেখনকার প্রকৃতির মায়ায় পরেন। ২০১৪ সালে দৈনিক রাঙামাটির ঢাকা ব্যুরো অফিসের স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে  যোগদান করেন। এই সময়ের মধ্যে তিনি পেশাদার কাজের প্রয়োজনে আবার নিজ উদ্বোগে বার বার রাঙামাটির প্রকৃতির উপর ছবি তোলেন।

প্রদর্শনীতে তার তোলা ছবির ১০১টি ফ্রেমে মোট ১২১টি ছবির প্রদর্শন করা হবে। সবগুলো ছবি পার্বত্য জেলা রাঙামাটি সদর, পুরামোন পাহাড়, বড়দাম পহাড়, কাপ্তাই উপজেলার কর্নফুলি নদির তীর, শুভলং ও লংগদু লেক, জুড়াছড়ি ও বাঘাইছড়ি উপজেলার মনোরম সাজেক পহাড় থেকে তোলা। ছবিগুলোতে রাঙামাটির নৈসর্গিক সৌন্দর্যের পাশা পাশি পার্বত্য উপজাতি সম্প্রদায়ের জীবন জাপনের চিত্র তুলে আনার চেষ্টা করা হয়েছে।

পোস্ট, ঢাকা ব্যুরো অফিস।