ছাত্রলীগ পূর্ণাঙ্গ কমিটি না করলে আহবায়ক কমিটির ঘোষণা: মুছা

385

॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগ আগামী এক মাসের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা না করলে আহবায় কমিটি ঘোষণা করা হবে বলে মন্তব্য করেছেন জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মুছা মাতব্বর। বুধবার বিকেলে দলীয় কার্যালয়ে জেলা ছাত্রলীগের আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎ বার্ষিকী ও ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলায় শহীদদের স্মরণে স্মরণ সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মুছা জেলা ছাত্রলীগের উদ্দেশ্য বলেন,আমরা ৫২, ৬৬ এবং ৭০ এর ছাত্রলীগ চাই, পৃথক ছাত্রলীগ চাই না। ছাত্রলীগের পুরনো গৌরব ফিরে পেতে চাই। এখানে দীপংকরের ছাত্রলীগ, মুছার ছাত্রলীগ এবং আকবরের ছাত্রলীগ চাই না। এখানে মুছার স্লোগান দেওয়ার দরকার নেই বলে তিনি যোগ করেন। আ’লীগের এ নেতা বলেন, ছাত্রলীগের একটা স্লোগান হবে সেটা হবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, নেতা মোদের শেখ মুজিব। ছাত্রলীগ হবে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ছাত্রলীগ। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ ছাত্রলীগ।

আ’লীগের এ নেতা বর্তমান জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পদক-কে উদ্দেশ্য করে জানান, তোমাদের  কর্মকান্ডের জন্য তোমাদের ব্যর্থ সভাপতি- সম্পাদক বলা হবে। আমি চাই না তোমরা ব্যর্থতার গ্লানি গায়ে মাখো।

আ’লীগের এ নেতা রাঙামাটি কলেজ ছাত্রলীগের উদ্দেশ্য বলেন,  ক্যাম্পাসে শিবিরের ছেলেরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। পিসিপি সক্রিয় এবং দাপটের সাথে পিসিপি মিছিল মিটিং করে, আর আমার ছাত্রলীগের ছেলেরা মিছিল মিটিং করতে পারছে না দ্বন্দ্বের কারণে। তিনি এসময় ছাত্রলীগ-কে পরামর্শ দিয়ে বলেন, সামনে আমাদের নির্বাচন। পাহাড়ে অবৈধ অস্ত্রধারীরা সক্রিয় হয়ে উঠছে। আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র অব্যহত রয়েছে। এসব কিছু থেকে উত্তোরণ পেতে হলে আমাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।

জেলা আ’লীগের এ নেতা  আরও বলেন, ছাত্রলীগ অনেক বছর ধরে নবীণ বরণ করতে পারছে না। এর দায়ভার কে নিবে? ছাত্রলীগের প্রতি সারপ্রাইজ ঘোষণা দিয়ে বলেন, তোমরা আমাকে ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি দাও, রাঙামাটির ইতিহাসে আমি তোমাদের  সেরা নবীণ বরণ উপহার দিবো। তিনি জানান, নবীণ বরণ অনুষ্ঠান করার জন্য যা যা করার দরকার আমি তা করবো।

এ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি চিংকিউ রোয়াজা। ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল জব্বার সুজনের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ চাকমার সঞ্চালনায় এসময় আরও বক্তব্য রাখেন, জেলা আ’লীগের যুগ্ম সম্পাদক জসীম উদ্দীন বাবুল, আব্দুল মতিন, রাঙামাটি পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, সাবেক জেলা ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সাইদুল প্রমুখ।

আলোচনা শেষে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবার এবং ২১ আগস্ট শহীদদের স্মরণে দোয়া, মিলাদ ও মোনাজাত করা হয়।