নেপালের পর্বতে এখনও ৫০০ অভিযাত্রী

61

করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে লকডাউনে আছে নেপাল। এ কারণে দেশটির উঁচু কয়েকটি পর্বতের ট্রেইলে আটকা পড়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কয়েকশ’ অভিযাত্রী। অন্তত চারটি ট্রেকিং রুট থেকে প্রায় ৫০০ বিদেশি পর্বতারোহী লকডাউনের কারণে ফিরতে পারছেন না।

নেপাল পর্যটন বোর্ডের মুখপাত্র শ্রদ্ধা শ্রেষ্ঠা বলেন, ‘পর্বতরোহীদের উদ্ধার করে কাঠমান্ডুতে (নেপালের রাজধানী) ফিরিয়ে আনতে আমরা বিভিন্ন সরকারি সংস্থার সঙ্গে কাজ করছি। এরপর তারা যেন নিজ দেশে ফিরে যেতে পারেন সেজন্য দূতাবাসগুলোর সঙ্গে সমন্বয় করবো। জার্মানি ও ফ্রান্সের মতো কয়েকটি দূতাবাস ইতোমধ্যে অভিযাত্রীদের উদ্ধার করতে কয়েকটি এলাকায় চার্টার্ড বিমান পাঠানোর পরিকল্পনা করছে।’
নেপালের পর্বত
শ্রদ্ধা শ্রেষ্ঠা আরও জানান, আটকে পড়া পরিব্রাজকরা যেন সহজে কাঙ্ক্ষিত সহায়তা পেতে পারেন সেজন্য নেপাল পর্যটন বোর্ড একটি ওয়েবসাইট চালু করেছে।

নেপালের পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব কেদার বাহাদুর অধিকারী জানান, পর্বতে উচ্চতার কারণে এমনিতে অভিযাত্রীদের শ্বাস-প্রশ্বাস বাধাগ্রস্ত হয়। তাছাড়া করোনাভাইরাসের অন্যতম উপসর্গ শ্বাসকষ্ট। এ কারণে সবার সুরক্ষার কথা ভেবে গত ১৩ মার্চ বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু পর্বতশৃঙ্গ এভারেস্টসহ দেশটির সব পর্বতে আরোহণ স্থগিত ঘোষণা করে নেপাল সরকার। আগামী মাস অর্থাৎ এপ্রিলের শেষ সপ্তাহ পর্যন্ত প্রবেশাধিকার বন্ধ রাখা হবে।

এভারেস্টে অভিযানের জন্য অনুমোদন পেতে প্রত্যেক পর্বতারোহীর ১১ হাজার ডলারের (প্রায় সাড়ে ৯ লাখ টাকা) মতো ব্যয় হয়।