কাপ্তাইয়ে দু’গ্রুপের সংঘর্ষ

285

॥ কাপ্তাই  প্রতিনিধি ॥

রাঙামাটির  কাপ্তাই উপজেলার নতুন বাজার এলাকায়  সিএনজি চালক সমিতি অফিসের সিড়ি নিয়ে  ‘নতুন বাজার বণিক কল্যাণ সমিতি’ ও ‘সিএনজি ( অটোরিক্সা চালক সমিতির’ নেতা-কর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। শনিবার রাত আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষের সংঘর্ষে নতুন বাজার বণিক কল্যাণ সমবায় সমিতির সভাপতি সাগর চক্রবর্ত্তী সিএনজি চালকদের  হাতে লাঞ্চিত হন।

সূত্র জানায়, সিএনজি চালক সমিতি অফিসের সিড়ি সরানোকে কেন্দ্র করে গত কয়েকমাস ধরে দুুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করে আসছিল। শনিবার (২৯ জুলাই) রাতে  ব্যবসায়ী সমিতির সদস্যরা সিড়িটি সরাতে গেলে দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা হয়। উভয় পক্ষ হাতুড়ি, লাটি সোটা নিয়ে মারমুখী অবস্থান নিলে ঘটনাস্থলে পুলিশ,বিজিবি এবং সেনাবাহিনীর সদস্যরা এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

কাপ্তাই পুলিশ ফাঁড়ির আই,সি, কামরুল ইসলাম ঘটনার সতত্যা নিশ্চিত  করে জানান, বাজারে একটি সিঁড়ি সরানোকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে এই ঘটনা ঘটে।

তিনি জানান,কাপ্তাই থানার উপ পরিদর্শক যশ চাকমার নেত্বত্বে পুলিশ এবং ১৯ বিজিবি সুবেদার এ্যাডজুটেন্ট মাঈন উদ্দিনের নেত্বত্বে বিজিবির সদস্যরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে দুই পক্ষকে সরিয়ে উত্তেজনা বন্ধ করে।

এ ব্যাপারে কাপ্তাই বণিক কল্যান সমিতির সভাপতি সাগর চক্রবর্ত্তী জানান,  সিএনজি সমিতিকে এই মাসের জুলাইয়ের ১ তারিখের মধ্যে সিঁড়ি সরানোর জন্য নোটিশ প্রদান করা হলেও তারা বেআইনী ভাবে এই সিড়ি না সরালে ব্যবসায়ীদের ক্ষতির দিক বিবেচনা করে শনিবার (২৯ জুলাই) রাতে সিড়িটি সরাতে গেলে সিএনজি সমিতির কয়েকশ সদস্য লাঠি সোটা নিয়ে ব্যবসায়ীদের উপর চড়াও হয়। এতে তিনিসহ  ব্যবসায়ী সমিতির কয়েকজন শারীরীকভাবে লাঞ্চিত হন।

অপরদিকে সিএনজি চালক সমিতির সভাপতি আব্দুস সোবহান অভিযোগ করেন, ব্যবসায়ী সমিতির সদস্যরা তাদের ব্যবহৃত সিড়িটি সমিতির কাউকে না জানিয়ে সরিয়ে ফেলে। এতে চালক সমিতির সদস্যরা বাধা দিলে ব্যবসায়ীরা চালক সমিতির সাধারন সম্পাদক ইমাম হোসেনকে লাঞ্চিত করে।

তিনি জানান গত ২০ বছরেরও অধিক সময় ধরে সিএনজি সমিতি  সিঁড়িটি তাদের অফিসের কাজে ব্যবহার করে আসছে। এদিকে  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তারিকুল ইসলাম ঘটনাস্থলে গিয়ে দুই পক্ষকে নিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

ইউএনও তারিক জানান, বাজারের একটি সিড়ি নিয়ে  দুই পক্ষের মধ্যে বেশ কিছুদিন যাবত উত্তেজনা চলে আসছিল। এই সমস্যা নিয়ে উপজেলা মাসিক সমন্বয় সভায় দুই পক্ষকে নিয়ে রোববার (৩০ জুলাই) সমযোতা মিটিং করার কথা থাকলেও শনিবার (২৯ জুলাই) দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এই বিষয়ে  রোববার  (৩০ জুলাই) সকাল ১০টার দিকে  উপজেলা সম্মেলন কক্ষে দুই পক্ষকে নিয়ে বৈঠক করবেন বলে ইউএনও তারিক জানান।