নানিয়ারচরে করোনা মোকাবেলায় কাজ করে যাচ্ছে নিরাপত্তা বাহিনী ও উপজেলা প্রশাসন

470
॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥
নানিয়ারচরে করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় নিরাপত্তা বাহিনী ও উপজেলা প্রশাসনের প্রেষণায় উদ্বুদ্ধ হয়ে নিজস্ব উদ্যোগে কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করেছে স্থানীয় জনগন।
করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) নামক প্রাণঘাতী ভাইরাসের সংক্রমন পৃথিবী জুড়ে মহামারী আকার ধারণ করায় গত ২৫ মার্চ ২০২০ তারিখ হতে সারা দেশের ন্যায় নানিয়ারচর জোনের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যগন করোনা ভাইরাসের সংক্রমন রোধকল্পে জনগনের মাঝে যথাযথ সতর্কতা ও সচেতনতা তৈরীর লক্ষ্যে বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা প্রদানে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
বিশেষ করে বিদেশ ও দেশের অন্যান্য জেলা হতে আগত ব্যক্তিবর্গ যাতে সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী কোয়ারেন্টাইনে থাকে তা নিশ্চিত করার জোর প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে এবং সাধারণ মানুষ যাতে এ সংক্রান্ত সরকারি নির্দেশনাসমূহ মেনে চলে সেজন্য সকলকে প্রেষণা প্রদান করা হচ্ছে।
নিরাপত্তা বাহিনী ও উপজেলা প্রশাসনের প্রেরণায় উদ্বুদ্ধ হয়ে বর্তমানে স্থানীয় জনগণ করোনা বিষয়ক সকল নির্দেশনা যথাযথভাবে অনুসরণ এবং এ সংক্রান্ত সকল ধরনের সর্তকতা অবলম্বন করছে। ইতিপূর্বে বিদেশ ও দেশের অন্যান্য জেলা হতে আগত ব্যক্তিবর্গ স্বেচ্ছায় নিজ নিজ বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে।
এছাড়া গত ১২ এপ্রিল ২০২০ তারিখে ঢাকা ও চট্টগ্রামসহ দেশের অন্যান্য জেলা হতে নানিয়ারচরে আগত ০১ জন পাতাছড়ি ব্র্যাক স্কুলে, ০২ জন মনতলা ব্র্যাক স্কুলে, ০২ জন ঘিলাছড়ি প্রাইমারি স্কুলে, ০৪ জন চৌধুরী পাড়া প্রাইমারি স্কুলে এবং ০৭ জন জুরাছড়ি প্রাইমারি স্কুলে স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে। স্থানীয় ইউপি সদস্যদের মাধ্যমে জানা যায়, বর্তমানে নানিয়ারচর জোন ও উপজেলা প্রশাসনের প্রেষণায় উদ্বুদ্ধ হয়ে নানিয়ারচরের জনগন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় বদ্ধপরিকর।
নানিয়ারচর জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল মোঃ কাইয়ুম হোসেন (পিএসসি) জানান, নানিয়ারচর উপজেলার বাসিন্দারা স্বপ্রণোদিত হয়ে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে। তাদের করোনা বিষয়ক এই সচেতনতাকে নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষথেকে সাধুবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে তাদের নিরাপদে থাকা ও খাওয়ার ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হচ্ছে। নানিয়ারচর জোন ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিয়মিত তাদের খোঁজ-খবর নেয়া ও তাদের নিকট ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হচ্ছে।