রাঙামাটিতে উচ্চমূল্যের ফসল-ফল ও মসলা উৎপাদপনের কর্মশালা

320

॥স্টাফ রিপোর্টার ॥
রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ-সিএইচটিডিএফ-ইউএনডিপি এর বাস্তবায়নে এবং ডানিডার অর্থায়নে পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা প্রকল্প (২য় পর্যায়) এর আওতায় উচ্চমূল্যের ফসল-ফল ও মসলা উৎপাদন প্রযুক্তি বিষয়ের উপর রাঙ্গামাটি কৃষি বিভাগের বিভিন্ন উপজেলার ২৫জন উপ-সহকারীদের নিয়ে তিন দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা শুরু হয়েছে।

রাঙামাটি জেলা প্রাণী সম্পদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে মঙ্গলবার এ কর্মশালা শুরু হয়।
রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্ধোধন করেন।

জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ সাখাওয়াত হোসেনের সভাপতিত্বে কর্মশালায় বিশেষ অতিথি ছিলেন,জেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপ-পরিচালক রমনী কান্তি চাকমা ও ইউএনডিপি-সিএইচটিডিএফ এর জেলা ব্যবস্থাপক ঐশ্বর্য চাকমা উপস্থিত ছিলেন। কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য দেন কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা প্রকল্পের জেলা কর্মকর্তা সুকিরণ চাকমা। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা প্রকল্পের মাষ্টার ট্রেইনার শিখা চাকমা।

প্রশিক্ষণ কর্মশালা উদ্ধোধনকালে বৃষকেতু চাকমা বলেন, বাংলাদেশ কৃষি নির্ভরশীল দেশ। দেশের জাতীয় আয়ের এক উল্লেখযোগ্য অংশ আসে কৃষি খাত থেকে। তাই কৃষি বান্ধব সরকারের নানা ইতিবাচক কার্যক্রমের ফলশ্রুতিতে দেশ আজ খাদ্যে স্বয়ং সম্পূর্ণ। তিনি বলেন, সরকারের এই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে তৃণমূল পর্যায়ের কৃষান-কৃষানীদের আধুনিক পদ্ধতিতে চাষাবাদে উদ্বুদ্ধ ও সচেতন করতে হবে। এ লক্ষ্যে এই প্রশিক্ষণ কর্মশালা।

তিনি বলেন, সমতলের তুলনায় পার্বত্য জেলায়ও উচ্চমূল্যের ফল-ফলাদির ফলন ভালো হচ্ছে। আধুনিক পদ্ধতিতে চাষাবাদ করা গেলে এ জেলায় আরো উচ্চমূল্যের ফল-ফলাদি এবং মসলা উৎপাদন করা সম্ভব।

তিনি কৃষি বিভাগের কর্মকর্তাদের উদ্দ্যেশে বলেন, এই প্রশিক্ষণ থেকে অভিজ্ঞতা ও জ্ঞান অর্জণ করে পাহাড়ের তৃণমূল পর্যায়ের কৃষকদের কৃষি উন্নয়নে কাজ করতে হবে তবেই এই প্রশিক্ষণ সফল ও স্বার্থক হবে এবং এ জেলার কৃষকদের ভাগ্য উন্নয়ন হবে। আগামীতে জেলার ফুরোমোন এলাকায় পরিষদ হতে কমলা চাষ করারও পরিকল্পনা রয়েছে বলে তিনি কর্মশালায় জানান। পরে প্রশিক্ষণ কর্মশালায় উপস্থিত প্রশিক্ষনার্থীদের মাঝে প্রশিক্ষণ উপকরণ বিতরণ করেন অতিথিরা।