রাঙামাটি জেলা পরিষদের ইফতার মাহফিল ও সংবর্ধণা অনুষ্ঠান

445

স্টাফ রিপোর্ট- ১১ জুন ২০১৭, দৈনিক রাঙামাটি: রোববার রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের উদ্যোগে ঐতিহ্য অনুযায়ী ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। পর্যটন হলিডে কমপ্লেক্সে অনুষ্ঠিত এ ইফতার মাহফিলে সকল শ্রেণী পেশার মানুষের মিলন মেলায় পরিণত হয়েছে। দলমত নির্বিশেষে এক টেবিলে বসে তারা সবাই মিলে একসাথে ইফতার করেছেন। রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্যবর্গ জেলা ও উপজেলার সকল শ্রেণী পেশার মানুষদের শুভেচ্ছা বিনিময়ের মাধ্যমে ইফতারে অংশগ্রহণ করেন।

এ সময় জেলা জর্জ মোঃ কাউসার, রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নান, জেলা পুলিশ সুপার সাঈদ তারিকুল হাসান, পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য হাজী কামাল উদ্দিন, জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা ছাদেক আহমেদ, প্রাক্তন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, সহ রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, সাংবাদিক, বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান প্রধানসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

ইফতারের আগে দেশ ও জাতির মঙ্গঁল কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন  প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ইমাম সমিতি ও  জেলা ওলামা লীগের সভাপতি ক্বারী মোঃ ওসমান গনি চৌধুরী।


রাঙামাটি জেলা পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তার বিদায় সংবর্ধনা
স্টাফ রিপোর্টার: অত্যন্ত আবেগঘন পরিবেশে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ এর মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম জাকির হোসেনকে বিদায় সংবর্ধনা দিয়েছে জেলা পরিষদ। রোববার সকালে  পরিষদ সভা কক্ষে এ বিদায় সংবর্ধনা দেয়া হয়।

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ এর চেয়ারম্যান জনাব বৃষ কেতু চাকমার সভাপতিত্বে বিদায় অনুষ্ঠানে বক্তৃতা রাখেন- বিদায়ী মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম জাকির হোসেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য হাজী কামাল উদ্দিন, পরিষদের সদস্য সবির কুমার চাকমা, নির্বাহী কর্মকর্তা ছাদেক আহমদ, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের এডিপিইও মনসুর আলী চৌধুরী, নির্বাহী প্রকৌশলী কাজী আব্দুস সামাদ, হিসাব ও নিরীক্ষা কর্মকর্তা মোঃ খোরশেদ আলম চৌধুরী এবং পরিষদের কর্মচারী কল্যাণ সমিতির সহ সভাপতি জগদ্বীশ চাকমা।

বিদায় অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, জেলা পরিষদের বিদায়ী মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম জাকির হোসেন প্রায় ৩ বছর পরিষদে দায়িত্ব থাকাকালীন সময়ে তিনি তার কাজ ও দায়িত্বের প্রতি খুবই আন্তরিক ছিলেন। তিনি শুধু পরিষদের কর্মকর্তা কর্মচারী নয়, জনপ্রতিনিধি ও সকল শ্রেণিপেশার মানুষের সঙ্গে ব্যবহারে অত্যন্ত আন্তরিক ছিলেন। একারণে তিনি সাধারণ মানুষের মধ্যে একজন জনবান্ধব কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিতি অর্জন করতে সক্ষম হন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকলে বিদায়ী মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তার সফলতা ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন।

বিদায়ী মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম জাকির হোসেন বলেন, পার্বত্য এলাকার মানুষ খুবই আন্তরিক ও শান্তিপ্রিয়। দেশের খুবই কম ভাগ্যবান কর্মকর্তার বদলী পার্বত্য জেলায় হয়। আমি এখানে এসে এখানকার বিভিন্ন ভাষাভাষী মানুষের কল্যাণে কাজ করতে পেরে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করছি। দায়িত্ব পালনকালে সবাই যেভাবে সহযোগিতা করেছেন সেকারণে তিনি সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। পরে পরিষদের পক্ষ থেকে বিদায়ী মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তার হাতে শুভেচ্ছা ক্রেষ্ট তুলে দেন পরিষদের চেয়ারম্যান, সদস্য ও অন্যান্য কর্মকর্তাগণ।

পোস্ট করেন- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরো প্রধান