রাঙামাটি পৌরসভার জন্য প্রায় এক শ’কোটি টাকার প্রকল্প রেখে সাবেক মেয়র ভূট্টো বিদায় : আজ নতুন মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণ

369

p.1-2

স্টাফ রিপোর্টার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৬, দৈনিক রাঙামাটি : ‘যা কিছু করতে পেরেছি তা জনগণের জন্যই করেছি এবং যে টুকু করতে পারিনি তার দায়ভারও আমরা স্বীকার করছি। তবে আমরা স্বস্তিবোধ করছি যে বিগত পাঁচ বছর দায়িত্ব পালনকালীন সময়ে আমরা আমাদের সাধ্যমতো রাঙামাটি পৌরবাসীর জন্য উন্নয়নের চেষ্টা করে গেছি। এর ফসল হিসেবে বর্তমানে রাঙামাটি পৌরসভার উন্নয়নের জন্য প্রায় এক শ’ কোটি টাকার অনুমোদনকৃত প্রকল্প রেখে যেতে পারছি আমরা। রাঙামাটি পৌরসভার বিদায়ী মেয়র সাইফুল ইসলাম চৌধুরী (ভূট্টো) এভাবেই সাংবাদিকদের সামনে তার শেষ অনুভূতি ব্যক্ত করে বলেন, আমার দায়িত্ব পালনকালীন সময়ে যে প্রতিবন্ধকতাগুলো আমরা মোকাবেলা করেছি তা নিতান্তই রুঢ় বাস্তবতা। তবে এর মাঝেও বিভিন্ন দাতাগোষ্ঠী এবং মন্ত্রণালয়ের দারে দারে ঘুরে আমরা যে প্রকল্পগুলো অনুমোদন করিয়ে আনতে পেরেছি তা নিতান্ত কম নয়।

শনিবার পৌরসভা কার্যালয়ে আয়োজিত সাংবাদিকদের সাথে এক চা চক্রে মিলিত হয়ে মেয়র তার বিদায়কালীন সময়ে কি রেখে যাচ্ছেন তিনি তার একটি সংক্ষিপ্ত বিবরণ তুলে ধরেন। এ সময় তিনি জানান, ইতোমধ্যে তিনি ইউজিপ তথা ‘শহর এলাকায় গণতন্ত্রের জন্য অবকাঠামো উন্নয়ন’ প্রকল্পের আওতায় ১৫ কোটি ৭২ লক্ষ টাকার টেন্ডার আহ্বান করেছি। এ সংক্রান্ত অর্থ ইতোমধ্যেই ছাড় করেছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া রাঙামাটি পৌরসভায় একটি আধুনিক মিলনায়তনসহ (টাউনহল) পৌরভবন নির্মাণ করার জন্য ইতোমধ্যে ২ কোটি ৮৯ লক্ষ ৩৮ হাজার টাকার একটি প্রকল্পের টেন্ডার প্রক্রিয়া শেষ করে কার্যাদেশ প্রদান করা হয়েছে। এর বাইরে ইউজিপ প্রকল্পে প্রস্তাবিত প্রকল্প অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে আরো ৭৫ কোটি টাকা এবং ফিসারী ঘাট থেকে ট্রাক টার্মিনাল পর্যন্ত সংযোগ সড়কে সিম্বল অব রাঙামাটি নামে একটি পর্যটন নির্ভর সৌন্দর্য বর্ধনমুলক প্রকল্পও চুড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। ৪২ কোটি টাকা ব্যয় সাপেক্ষ এই প্রকল্পের কাজও শীঘ্রই শুরু করা যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন বিদায়ী মেয়র সাইফুল ইসলাম চৌধুরী (ভূট্টো)।

মেয়র বলেন, আমরা রাঙামাটিকে একটি আলোকিত দুর্গন্ধমুক্ত পর্যটন শহর হিসেবে গড়ে তোলার স্বপ্ন নিয়ে দায়িত্ব গ্রহণ করেছিলাম। আমি এই লক্ষে কাজ করে গেছি। কাজ শেষ করে যেতে না পারলেও আজ স্বস্তিবোধ করছি যে, এই প্রকল্পগুলো চুড়ান্ত করে পরবর্তী পরিষদের জন্য রেখে যেতে পারছি।

মেয়র বলেন, এর বাইরে আমরা গত পাঁচ বছর ছোটখাট যে উন্নয়ন কাজগুলো করেছি যা জনগণের নজরে রয়েছে। যে কোনো সময় যে কেউ এ ব্যপারে জানার জন্য আমার কাছে আসতে পারেন বা আমাকে ডাকতে পারেন। আমি সাধ্যমতো ব্যখ্যা দিতে প্রস্তুত থাকবো। নতুন মেয়রকে একটি মেধাবী নেতা উল্লেখ করে বলেন আমার বিশ্বাস তিনি এই পৌরসভাকে আরো সুন্দর নগর হিসেবে দাঁড় করাতে পারবেন।

আজ (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাঙামাটি পৌরসভার
নতুন পরিষদে দায়িত্ব হস্তান্তর :

স্টাফ রিপোর্টার- আজ (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাঙামাটি পৌরসভার দায়িত্ব হস্তান্তর হচ্ছে। রাঙামাটি পৌরসভার নব নির্বাচিত মেয়রসহ তার সাথে নির্বাচিত হয়ে ইতোমধ্যেই শপথকৃত পৌর পরিষদের কাছে বিদায়ী মেয়র সাইফুল ইসলাম চৌধুরী (ভূট্টো) এবং তার পরিষদ আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্¡ হস্তান্তর করবেন। নতুন পরিষদের দায়িত্ব গ্রহণ ও তাদের সংবর্ধনা এবং পুরাতন পরিষদকে বিদায়ী সংবর্ধনা প্রদানের লক্ষে আজ এক অনাঢ়ম্বর অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে রাঙামাটি পৌরসভা।

পৌরসভার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল পারভেজ জানান, নতুন পরিষদকে বরণ এবং বিদায়ী পরিষদকে শুভেচ্ছা জানানোর লক্ষে ইতোমধ্যে যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। আজ রোববার সকাল ১০ টায় ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এই সংবর্ধনাসভা অনুষ্ঠিত হবে। এই সংবর্ধনায় উপস্থিত থাকার জন্য প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাগণসহ শহরের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। সংবর্ধনা শেষ করে উভয় মেয়র রাঙামাটি পৌরসভা কার্যালয়ে এসে আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব হস্তান্তর করবেন।

সম্পাদনা- শামীমুল আহসান, ঢাকা ব্যুরোপ্রধান