রাঙামাটিতে অনুষ্ঠিত ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলায় যত স্বীকৃতি

277
॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

রাঙামাটিতে শুরু হওয়া তিন দিনব্যাপী ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা ২০১৭ সমাপ্তির পর্দা নেমেছে। রোববার জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বিকেল চারটায় প্রশাসন প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত সমাপনী দিনে প্রধান অতিথি ছিলেন, স্থানীয় সরকার পরিষদ চট্টগ্রাম বিভাগের পরিচালক ও অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার দীপক চক্রবর্তী।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নানের সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শফিউল সারোয়ার।

এবারের মেলায় শ্রেষ্ঠ ডিজিটাল সেন্টার হয়েছে রাঙামাটি পৌরসভা। শ্রেষ্ঠ পোস্ট ই-সেন্টার বাঘাইছড়ি উপজেলার মারিশ্যা ই-সেন্টার, শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হয়েছে যৌথ ভাবে লেকার্স পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, রাঙামাটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, শ্রেষ্ঠ নাগরিক সেবায় রাঙামাটি জেলা প্রশাসন, শ্রেষ্ঠ উপজেলা টিম জুড়াছড়ি নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়, শ্রেষ্ট ই-সেবা প্রদানকারী দপ্তর যৌথ ভাবে কর কমিশনারের কার্যালয়, কর অঞ্চল-৩,চট্টগ্রাম ও বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্টে অতরিটি (বিআরটিএ), শ্রেষ্ঠ পোর্টালের দপ্তর রাজস্থলী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় ।

এদিকে শ্রেষ্ঠ তরুণ উদ্ভাবক ৩টি পদে এম এ বাশার প্রথম হয়েছেন। তিনি মাছ চাষ সহায়ক এ্যানড্রয়েট অ্যাপ তৈরি করেছেন। দ্বিতীয় রাঙামাটি সায়েন্স ক্লাব এবং তৃতীয় হয়েছে, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। এবারের মেলায় শ্রেষ্ঠ সেবা প্রদানকারী স্টল হিসেবে পুরুষ্কার লাভ করে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ।

বিশেষ উদ্ভাবনী সম্ভাবনা পুরুষ্কার লাভ করে, রাঙামাটি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়। এ স্কুলের শিক্ষার্থীরা ইমারজেন্সী মোবাইল চার্জার ও রোবোটিক হ্যান্ড তৈরি করে প্রথম হয়েছে। এন্ডি রেডিওশন সিটি তৈরি করে রাঙামাটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় দ্বিতীয় এবং আধুনিক নগরায়নে পানির পুন:ব্যবহার তৈরি করে তৃতীয় হয়েছে আব্দুল আলী একাডেমী উচ্চবিদ্যালয়।

এছ্ড়াা কুইজ প্রতিযোগিতায় লেকার্স পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্র মো: ফেরদৌস ইউসুফ প্রথম, একই স্কুলের তীর্থ পাল ছামিন দ্বিতীয়,আবত্বাহী পঞ্চম স্থান, রাঙামাটি বিএম ইন্সটিটিউটের কর্মকর্তা অমিরাজ দাশ তৃতীয় এবং রাঙামাটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র আকতারুজ্জামান চতুর্থ স্থান লাভ করে।

বিতর্ক প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়েছে লেকার্স পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা। দ্বিতীয় রাঙামাটি সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরা। সেরা বিতার্কিক হয়েছে লেকার্স পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্রী পুষ্পিতা দাশ। বিভিন্ন বিভাগে বিজয়ীদের মাছে পুরুষ্কার বিতরণ করেন অতিথিরা। চলতি বছরের ১৩ জানুয়ারী এ মেলা শুরু হয়। এবারের মেলায় সরকারি-বেসরকারি ৪৬টি প্রতিষ্ঠান স্টলের মাধ্যমে সাধারণ জনগণকে সেবা প্রদান করেছে।