রাঙামাটি সদরে প্রথম বাঙালি নারী কার্বারী নিযুক্ত হলেন রোকসানা

806

॥ সংবাদ বিজ্ঞপ্তি ॥

পার্বত্য চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী তৃণমূল নেতেৃত্বে প্রথম বাঙালি নারী কার্বারী হিসেবে জায়গা পেয়েছেন, রাঙামাটি পৌরসভার সাবেক কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ নেত্রী রোকসানা আক্তার। সম্প্রতি তাঁকে ১০৪ নং ঝগড়াবিল মৌজার কার্বারী নিয়োগ করা হয়েছে। চাকমা সার্কেলের চীফ ব্যারিস্টার রাজা দেবাশীষ রায় রাজার ক্ষমতাবলে গত সোমবার তাকে এই নিয়োগ প্রদান করেন।

চাকমা রাজ কার্যালয়ের স্মারক নং- সি, আর/১৬৯(৬)/প্রশা, তাং ১৮/০৯/২০১৭ খ্রীঃ মূলে বলে বলা হয় মিজ রোকসানা আক্তার, পিং মৃত আব্দুল খালেক, গ্রাম স্বর্ণটিলা রাঙামাটি পার্বত্য জেলাকে এই স্মারক মূলে কার্বারী নিয়োগ করা হলো। দায়িত্ব পালনকালে তিনি কার্বারী হিসেবে প্রচলিত আইন, প্রথা ও রীতি-নীতি অনুযায়ী সকল সুযোগ প্রাপ্য হবেন।

উল্লেখ্য যে, ১৯০০ সালের শাসনবিধি অনুসারে পার্বত্য তিন জেলার বিভিন্ন অঞ্ছলকে তিনভাগে ভাগ করে তিনটি সার্কেলভুক্ত করা হয়। এই তিন সার্কেলে তিনজন সার্কেল চীফ, ৩০৬টি মৌজার দায়িত্ব তথা রাজস্ব আদায়ের দায়িত্ব পালন করেন। মৌজার মূল দায়িত্বে হেডম্যান এবং তাদের গ্রাম পর্যায়ে সহযোগীতা করেন কার্বারীরা। তবে তিন জেলায় হাতেগোনা কিছু বাঙালি হেডম্যান কার্বারী রয়েছে। নারী হেডম্যান কার্বারী ইতোপূর্বেও নিয়োগ দেওয়া হলেও রাঙামাটি সদরে বাঙালি নারী কার্বারী হিসেবে রোকসানা আক্তারই প্রথম নিয়োগপ্রাপ্ত হবেন বলে জানা গেছে।

ব্যক্তিগত জীবনে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হিসেবে রোকসানা আক্তার জীবনভর আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত রয়েছেন। তিনি এর আগে দু’বার রাঙামাটি পৌরসভার সংরক্ষিত নারী আসনে নির্বাচিত কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তার এই নিয়োগে সন্তোষ প্রকাশ করেছে ঝগড়াবিল মৌজাসহ তার এলাকার জনগণ।